Policing By Beat, Feni

6

ফেনী জেলা পুলিশের কার্যক্রমঃ-
0/5 No votes
Developer
AS Lab
Version
6
Updated
February 18, 2022
Requirements
5.0 and up
Size
5.3M
Get it on
Google Play

Report this app

Description

ফেনী জেলা পুলিশের কার্যক্রমঃ-
১৯৮৪ সালে ফেনী জেলা মর্যাদা লাভ করলে পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে একটি পূর্ণাঙ্গ পুলিশ ইউনিট চালু হয়। বর্তমানে জেলা পুলিশ সুপারের নেতৃত্বে ফেনী জেলায় ০৩টি সার্কেল এর সরাসরি তত্ত্বাবধানে ০৬টি থানা, ০১টি ট্রাফিক ইউনিট, ০৩ পুলিশ তদন্ত কেন্দ্র, ০১টি শহর পুলিশ ফাঁড়ী এর মাধ্যমে আইন-শৃঙ্খলা কার্যক্রম পরিচালনা করা হয়। এছাড়াও বর্তমানে প্রযুক্তির প্রসার, জনসংখ্যা বৃদ্ধি, অপরাধের ধরণ, পরিবর্তনের ফলে জেলার সার্বিক আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা, চুরি, ডাকাতিসহ সব ধরনের অপরাধ নিয়ন্ত্রন সর্বোপরি পুলিশী সেবা মানুষের দৌড় গোড়ায় পৌছে দেওয়ার জন্য মাননীয় আইজিপি এবং চট্টগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি মহোদয়ের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ফেনী জেলায় ৪৩টি ইউনিয়নে গঠন করা হয়েছে ৪৩টি বীট পুলিশিং ইউনিট এবং ৫টি পৌরসভাকে ২০টি বীট পুলিশিং ইউনিট এ গঠন করা হয়েছে। প্রতিটি বীটের দায়িত্বে বীট অফিসার হিসাবে ০১জন উপ-পুলিশ পরিদর্শক(এসআই) ও সহকারী বীট অফিসার হিসাবে ০১জন সহকারী উপ-পুলিশ পরিদর্শক‘কে নিয়োজিত করা হয়েছে। এছাড়া ফেনী জেলা পুলিশের অধিনে রয়েছে জেলার বিশেষ শাখা(ডিএসবি), জেলা বিশেষ শাখার কাজই হলো অগ্রিম গোয়েন্দা তথ্য সংগ্রহ করা। এরূপ গোয়েন্দা কাজের পাশাপাশি জেলার বিশেষ শাখা সেবা মূলক কাজও করে থাকে। যেমনঃ- পাসপোর্ট প্রাপ্তির ক্ষেত্রে তদন্ত পূর্বক মতামত প্রদান, দেশী-বিদেশী এনজিও/ সংস্থার নিরাপত্তার ছাড়পত্র প্রদান, বিদেশী নাগরিকদের ভিসার মেয়াদ বৃদ্ধিতে মতামত প্রদান, বিদেশ গামী যাত্রীদের পুলিশ ক্লিয়ারেন্স সার্টিফিকেট অনলাইন পদ্ধতিতে প্রদান করা ইত্যাদি। এছাড়াও ল্যান্ড পোর্টসমূহের ইমেগ্রেশন চেকপোষ্ট এর মাধ্যমে যাত্রীদের গমনাগমন নিয়ন্ত্রন এবং চাকুরিতে নিয়োগের লক্ষে ভেরিফিকেশন সম্পাদন কার্যক্রম উল্লেখ যোগ্য।

বিট পুলিশিং কী:
পুলিশের সেবাকে জনগণের নিকট পৌছে দেওয়া, সেবার কার্যক্রমকে গতিশীল ও কার্যকর করা এবং পুলিশের সাথে জনগণের সম্পৃক্ততা বৃদ্ধি করার উদ্দেশ্যে প্রতিটি থানাকে ইউনিয়ন ভিত্তিক বা মেট্রোপলিটন এলাকায় ওয়ার্ড ভিত্তিক এক বা একাধিক ইউনিটে ভাগ করে পরিচালিত পুলিশিং ব্যবস্থাকেই বলা হয় “বিট পুলিশিং’। এই ব্যবস্থায় প্রতিটি বিটের দায়িতৃ প্রদান করে এক বা একাধিক পুলিশ কর্মকর্তা নিয়োগ করা হয়।
লক্ষ্য: পুলিশের সেবাকে জনগণের দোরগোড়ায় পৌঁছে দেওয়া ।
উদ্দেশ্য: ১. পুলিশের সেবাকে সরাসরি থানা থেকে তৃণমূল পর্যন্ত বিস্তৃতকরণ; ২. ইউনিয়ন/ওয়ার্ড পর্যায়ে নিবিড় পুলিশিং; ৩. থানায় মোতায়েনকৃত জনবলের সবেত্তিম ব্যবহার; ৪. প্রান্তিক পর্যায়ে জনসম্পৃক্তির মাধ্যমে এলাকায় উথিত বা বিরাজমান সমস্যার প্রতিরোধ ও প্রতিকারমূলক ব্যবস্থা গ্রহণ; ৫. এলাকায় আইন-শৃঙ্খলা ও অপরাধ সংক্রান্তে অথ্রিম গোপন সংবাদ এবং গোয়েন্দা তথ্য সংঘহের সক্ষমতা বৃদ্ধি; ৬. সমাজ থেকে অপরাধভীতি দূরীকরণপূর্বক জনমনে স্বস্তি ও আস্থা স্থাপন করা; ৭. জনসাধারণের মধ্যে নিরাপত্তাবোধ (Sense of security) তৈরি করা;

বিট পুলিশিং-এর গঠন:
১. জেলার অন্তর্গত থানা এলাকার প্রত্যেকটি ইউনিয়নে একটি বিট, পৌরসভার ক্ষেত্রে সাধারণভাবে তিনটি ওয়ার্ড নিয়ে একটি বিট এলাকা গঠিত হবে: মেট্রোপলিটন বা সিটি কর্পোরেশন এলাকায় সাধারণভাবে একটি ওয়ার্ড নিয়ে একটি বিট গঠিত হবে। তবে সংশ্রষ্ট ওয়ার্ডের আয়তন, জনসংখ্যা, অপরাধের ধরন ও প্রকৃতি বিবেচনায় একাধিক বিট গঠন করা যেতে পারে; ২. প্রতিটি বিটে ০১ জন সাব-ইন্সপেক্টর বিট ইনচার্জ হিসাবে থাকবেন, যিনি বিট অফিসার নামে পরিচিত হবেন। প্রত্যেকটি বিটে একজন করে এএসআই সহকারী বিট অফিসার হিসেবে দায়িতু পালন করবেন। বিটে তার সাথে সহযোগী হিসেবে সাধারণভাবে দুই জন কনস্টেবল থাকবেন। সংশ্লিষ্ট থানা (তদন্ত কেন্দ্র, ফাঁড়ি, স্থায়ী ক্যাম্প সহ) থেকেই উক্ত কর্মকর্তাদেরকে নিয়োগ দিতে হবে। থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা তার অধিভুক্ত বা আওতাধীন এলাকার বিটগুলোতে বিট অফিসার/সহকারী বিট অফিসারদের মোতায়েন ও দায়িত্ব বন্টন করবেন। ইন্সপেক্টর (অপারেশনস্/তদন্ত) অফিসার ইনচার্জ (ওসি)কে সহায়তা করবেন। কর্মকর্তাদের লভ্যতা অধিক হলে একটি বিটে উপরে উল্লিখিত সংখ্যার অতিরিক্ত সহকারী বিট অফিসারকে দায়িত্ব প্রদান করা যেতে পারে ।

Images

Leave a Reply